‘বিকাশে ৫০০ টাকা দাও পাসপোর্টের ভেরিফিকেশন করে দিচ্ছি’

‘বিকাশে ৫০০ টাকা দাও পাসপোর্টের ভেরিফিকেশন করে দিচ্ছি’

এক শিক্ষকের স্ত্রীর পাসপোর্ট পেতে পুলিশ ভেরিফিকেশন লাগবে। দায়িত্ব পেয়েছেন যশোর পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) উপ-পরিদর্শক সাইদুর রহমান। এলাকায় গিয়ে ভেরিফিকেশন করার নিয়ম। কিন্তু তিনি না গিয়ে উল্টো বৃহস্পতিবার সকালে ওই শিক্ষকের কাছে ফোন করে বিকাশে ৫০০ টাকা ঘুষ দাবি করেন। বলেন, ‘বিকাশে ৫০০ টাকা পাঠিয়ে দাও, ভেরিফিকেশন রিপোর্ট দিয়ে দেব। আসার দরকার নেই।’

অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে এই প্রতিবেদক সাংবাদিক পরিচয় গোপন করে এসআই সাইদুর রহমানের কাছে ফোন করেন। প্রতিবেদকের কাছেও তিনি ৫০০ টাকার সঙ্গে ১০ টাকার বিকাশ খরচ দাবি করেন। এ সময় তিনি বলেন, ৫০০ টাকা বিকাশে দিয়ে দিলে তিনি এক-দুদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিয়ে দেবেন। এভাবে তিনি সবার কাছ থেকেই টাকা আদায় করেন বলে স্বীকার করেন। পরে সাংবাদিক পরিচয় দিলে বলেন, আগে পরিচয় দেবেন না। সাংবাদিক পরিচয় দিলে তো

এমনিতেই করে দিই। ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, যশোরে টাকা ছাড়া পাসপোর্ট আবেদনে পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজ হয় না। অভয়নগরের এক সাংবাদিক জানান, কয়েক দিন আগেও আমার পরিচিত একাধিক লোকের কাছ থেকে ভেরিফিকেশনের নামে বিকাশে টাকা নেয়া হয়েছে। প্রতিনিয়ত এভাবে টাকা নিয়ে অফিসে বসে ভেরিফিকেশন রিপোর্ট দেয়া হচ্ছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে যশোর ডিএসবি অফিসার ইনচার্জ তাহেরুল ইসলাম বলেন, নতুন কর্মস্থলে যোগ দিয়েছি। এক মাসও হয়নি। এ বিষয়ে বিস্তারিত বলতে পারব না। তবে অভিযোগের সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।