এবার মাইকে আজান বন্ধের দাবি উঠলো ভারতে!

এবার মাইকে আজান বন্ধের দাবি উঠলো ভারতে!

এবার মাইকে আজান বন্ধের দাবি জানিয়েছে ভারতের মহারাষ্ট্রের হিন্দু জনজাগৃতি নামে একটি সংগঠন। ওই সংগঠনের পাশে দাঁড়িয়েছে শিবসেনা।

হিন্দু জনজাগৃতি সংগঠনের দাবি, আদালতের নির্দেশিকা রয়েছে। তাকে কা‌র্যকর করছে না পুলিশ। কিন্তু গণপতি উৎসবের সময় লাউডস্পিকার বন্ধ করতে তাদের তৎপরতা চোখে পড়ার মতো।

সোমবার সনু নিগমের একটি ট্যুইট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় তোলপাড় শুরু হয়। যেখানে সনু বলেছিলেন, তিনি মুসলিম নন কিন্তু তাও আজানের শব্দে তার ঘুম ভেঙ্গে যায়, তাকে উঠে যেতে হয়, আর এতে তার আপত্তি রয়েছে।

এরপর সোনু নিগমের সমর্থনে মঙ্গলবার ট্যুইট করেন কংগ্রেসের বর্ষীয়ান নেতা আহমেদ প্যাটেল। তিনি জানান, নামাজের জন্য আজান জরুরি, লাউডস্পিকার জরুরি নয়।

হিন্দু জনজাগৃতির দাবি, বহুদিন আগেই নামাজে লাউডস্পিকার বন্ধের দাবিতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে তারা। এক্ষেত্রে তাদের হাতিয়ার শব্দদূষণ। তাছাড়া প্রতিটি মানুষের ঘুমের অধিকারের কথাও আদালতে জানিয়েছে তারা। তথ্য পরিসংখ্যান দিয়ে জানিয়েছে- মুম্বাইয়ে কিভাবে মসজিদে ব্যবহার করা হচ্ছে লাউডস্পিকার। সমস্ত দিক বিবেচনা করে মসজিদে লাউড স্পিকার ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আদালত। কিন্তু আজও মসজিদ থেকে লাউডস্পিকার নামানো হয়নি। বরং দিনদিন তার শব্দমাত্রা বেড়েছে।

সংগঠনটির দাবি, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে এই ভয়ে মসজিদের লাউডস্পিকারে হাত দিচ্ছে না পুলিশ।

হিন্দু জনজাগৃতির এই দাবির পাশে দাঁড়িয়েছে শিবসেনা। দূষণের প্রশ্নে বিষয়টি গুরুতর বলে জানিয়েছে তারা।