মাইগ্রেনের ব্যথায় কী করবেন

মাইগ্রেনের ব্যথায় কী করবেন

মাথা থাকলে ব্যথা হবে এটাই স্বাভাবিক। তারপর আবার যদি হয় মাইগ্রেনের ব্যথা, তাহলে তো যন্ত্রণা আরও বেশি।

মাইগ্রেন শব্দটির উৎপত্তি দু’টি গ্রিক শব্দ হেমিকারনিয়া ও ক্রানিওন হতে যার অর্থ মাথার এক পাশে প্রচণ্ড ব্যথা।

পরিসংখ্যান বিবেচনায় নারীরা পুরুষের চেয়ে বেশিমাত্রায় মাইগ্রেনে আক্রান্ত হন, যার পরিমাণ যথাক্রমে শতকরা ১৯ এবং ১১ ভাগ।

সাধারণত ১৫ থেকে ২৪ বছর বয়সে মাইগ্রেনের সমস্যা শুরু হয় এবং ৩৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সে প্রকট আকার ধারণ করে। অনেক ক্ষেত্রে বাল্য বা বয়ঃসন্ধিকালেও মাইগ্রেনের সমস্যা দেখা যেতে পারে।

চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় মাইগ্রেন হলো এক ধরনের নিউরোলোজিক্যাল সমস্যা যেখানে মাথার এক পাশে নির্দিষ্ট ভঙ্গিতে, একই ধারায় তীব্র মাথা ব্যথা অনুভূত হয় এরসঙ্গে থাকে বমি বা বমিবমি ভাব, আলোক/গন্ধ সংবেদনশীলতা।

মাইগ্রেনের সুনির্দিষ্ট কারণ জানা না থাকলেও ধারণা করা হয় মস্তিষ্কে জেনেটিক মিউটেশনের ফলে মাইগ্রেনের উৎপত্তি।

এছাড়া অ্যালার্জি, উত্তেজিত হওয়া, দুশ্চিন্তা, তীব্র শব্দ/গন্ধের উপস্থিতি, ঘুমের সমস্যা, ধূমপান, খাবার গ্রহণে বিলম্ব, উত্তেজক পানীয় গ্রহণ, কিছু হরমোন জাতীয় ওষুধ সেবন ও বিশেষ কিছু খাবার যেমন : চকলেট, বাদাম, রসুন, মুরগির কলিজি, কলা বা টাইরামিন সমৃদ্ধ খাদ্য ইত্যাদি কারণে এটা দেখা দিতে পারে।

মাইগ্রেন থেকে সম্পূর্ণ নিরাময় সম্ভব কিনা, তা নিয়ে নানা রকম মতামত থাকলেও  ডাক্তারের পরামর্শে ব্যথানাশক, নির্দিষ্ট কিছু বিটা ব্লকার এবং অন্যান্য কিছু ওষুধ সেবন এবং জীবনযাত্রার পরিবর্তনের মাধ্যমে মাইগ্রেন থাকা সত্ত্বেও অনেক ভালো থাকা সম্ভব। তবে অবস্থা গুরুতর না হলে ওষুধ না খাওয়াই ভালো।

নিম্নে ওষুধ সেবন ছাড়াই মাইগ্রেনের মাথা ব্যথা থেকে পরিত্রাণের সহজ উপায় দেয়া হল :

আঙ্গুর : আঙ্গুরের রসে ভিটামিন-সি রয়েছে এবং এর বীজে উচ্চ মাত্রায় রাইবোফ্লাভিন থাকে, যা মাইগ্রেনের ব্যথার থেকে নিস্তার দিতে সাহায্য করে।

আদা : আদা চা বা শুধু এক টুকরো আদা চিবিয়ে খেলে মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে পরিত্রাণ পেতে পারেন।

কফি : কফিতে ক্যাফিন রয়েছে। অল্প পরিমাণে কফি পান করলে, তা মাইগ্রেনের মাথা ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। বিভিন্ন গবেষণায় এটি প্রমাণিত হয়েছে। তবে অতিরিক্ত পরিমাণে পান করা থেকে বিরত থাকবেন।

বাদাম : ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতির কারণে প্রায় আপনি মাইগ্রেনের ব্যথায় ভুগে থাকেন। প্রতিদিন এক মুঠো বাদাম খাওয়ার চেষ্টা করুন। কারণ বাদামে ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে, যা আপনার ব্যথা কমিয়ে দেবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.