যে যৌন নিপীড়ন রেখাকে কাঁদিয়েছিল

যে যৌন নিপীড়ন রেখাকে কাঁদিয়েছিল

জীবনের প্রথম চলচ্চিত্র ‘আনজানা সফর’-এ অভিনয় করতে গিয়ে যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছিলেন বলিউড অভিনেত্রী রেখা। ইয়াসির ওসমানের লেখা রেখার জীবনীগ্রন্থে এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।
রেখার বয়স তখন মাত্র ১৫ বছর। ডাক পেলেন ‘আনজানা সফর’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করার। আর এই চলচ্চিত্রের মাধ্যমেই রুপালি পর্দায় তাঁর অভিষেক হয়। সেদিক থেকে এটি রেখার জীবনের স্মরণীয় ঘটনাগুলোর একটি হতে পারত। তবে সেটি আর হয়নি। পারলে রেখা এই ছবিটির কথা ভুলে যেতেন। কারণ, রুপালি পর্দায় অভিষেকের আনন্দকে ছাপিয়ে এই ছবি তাঁকে যৌন নিপীড়নের গভীর কষ্ট দিয়েছিল।
রেখার জীবনে যা ঘটেছিল, তা ৪৪ বছর আগের চলচ্চিত্র ‘লাস্ট ট্যাংগো ইন প্যারিস’-এর নায়িকা মারিয়া স্নাইদারের জীবনের ঘটনাকে মনে করিয়ে দেয়। ১৯ বছর বয়সী মারিয়াকে অন্ধকারে রেখে পরিচালক বের্নার্দো বেরতোলুসি ও নায়ক মার্লোন ব্র্যান্ডো জোর করে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের দৃশ্য সংযোজন করেন। ওই দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়ে নিজেকে ধর্ষিতা মনে করেছিলেন বলে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন মারিয়া। তাঁর ভাষায়, ‘সত্যি বলতে, আমার মনে হচ্ছিল, আমি ধর্ষণের শিকার হয়েছি; নায়ক ও পরিচালকের দ্বারা।’

বলিউড অভিনেত্রী রেখা।প্রায় একই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল রেখার জীবনে। ওই ঘটনার সম্পর্কে ইয়াসির ওসমান লিখেছেন, বোম্বের (এখনকার মুম্বাই) মাহবুব স্টুডিওতে ‘আনজানা সফর’ চলচ্চিত্রের শুটিং চলছিল। ছবিটির পরিচালক ও চিত্রগ্রাহক ছিলেন রাজা নাওয়াথি। আর রেখার বিপরীতে ছিলেন বিশ্বজিৎ চ্যাটার্জি। নায়ক ও পরিচালক মিলে চিত্রনাট্যের বাইরে গিয়ে এমন দৃশ্য সংযোজন করেছিলেন, যে কারণে রেখা নিজেকে যৌন নিপীড়নের শিকার মনে করে কেঁদেছিলেন।
সেদিন রেখা ও বিশ্বজিতের মধ্যে প্রেমের দৃশ্য চিত্রায়ণের কথা ছিল। নায়ক-নায়িকাকে সেসব দৃশ্য বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছিল। পরিচালক ‘অ্যাকশন’ বলার সঙ্গে সঙ্গে শুরু হলো শুটিং। কিন্তু পরিচালক যেভাবে দৃশ্য বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, সেভাবে কিছু হচ্ছিল না। বরং নায়ক বিশ্বজিৎ রেখাকে নিজের বাহুতে জোরে আটকে ধরে চুমু দিতে শুরু করেন। চিত্রনাট্যের বাইরে গিয়ে নায়কের এমন আচরণে রেখা হতবাক হয়ে যান। কিন্তু তাঁর কিছুই করার ছিল না। নায়ক তাঁকে ছাড়ছেন না, পরিচালকও ‘কাট’ বলছেন না। এভাবে পাঁচ মিনিট পার হয়। কিন্তু বিশ্বজিৎ আর রেখার ঠোঁট ছাড়েননি। শুটিং ইউনিটের লোকজন এই দৃশ্য দেখে মজা নিচ্ছিল আর সিটি বাজাচ্ছিল। বহুকাল এই ঘটনা রেখাকে প্রচণ্ড কষ্ট দিয়েছে। এ নিয়ে কথা উঠলে বিশ্বজিৎ বলেছিলেন, এটা পরিচালকের মাথা থেকে এসেছিল। তিনি শুধু পরিচালকের হুকুম তামিল করেছেন।

আরও পড়ুন:  অন্তরঙ্গ দৃশ্যে অভিনয় প্রসঙ্গে নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানালেন মিমি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *